টেলিমেডিসিনই কিছু করোনা রোগীর জন্য যথেষ্ট

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার মৃদু উপসর্গযুক্ত রোগীরা বাসায় বা বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিতে পারেন। মোট আক্রান্তের মধ্যে এমন রোগীর সংখ্যা প্রায় ৮০ শতাংশ। এসব রোগীর চিকিৎসা টেলিমেডিসিনের মাধ্যমেই দেওয়া সম্ভব। তবে এটিই মূল চিকিৎসা, তা নয়। বর্তমান অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এটি করতে হচ্ছে। এমন চিকিৎসার ক্ষেত্রে নিশ্চিত হতে হবে রোগীর উপসর্গ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকেই দেখা দিয়েছে কি না।

কারণ, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হলে চিকিৎসকের আর বেশি কিছু দেখার প্রয়োজন হয় না। রোগীর কী কী সমস্যা হচ্ছে তা রোগী নিজেই বুঝতে পারেন। ফলে টেলিফোনে রোগীর অবস্থা শুনেই চিকিৎসক প্রয়োজনীয় পরামর্শ, উপদেশ ও ওষুধ দিতে পারেন।

বাড়িতে বসে যাঁরা চিকিৎসা নেবেন, তাঁদের আলাদা বা আইসোলেটেড থাকতে হবে। নিজের ও পরিবারের স্বার্থেই এটি করতে হবে, যাতে পরিবারের অন্য কেউ সংক্রমিত না হয়। এই সময় প্রচুর পানি ও তরল–জাতীয় খাবার এবং কুসুম গরম পানি খেতে হবে। দিনে কয়েক বার গরম বাষ্পের ভাপ নিতে হবে। সামর্থ্য অনুযায়ী পুষ্টিকর খাবার, তাজা ফলমূল ও শাকসবজি খেতে হবে। সম্ভব হলে একটু একটু করে ব্যায়াম করতে হবে। আর জ্বর থাকলে প্যারাসিটামল ও সর্দি, কাশি, হাঁচি ইত্যাদি থাকলে অ্যান্টি হিস্টামিন ট্যাবলেট খেতে হবে। এ ছাড়া ভিটামিন-সি, জিংক ও ভিটামিন-ডি খাওয়া যেতে পারে।

বাসায় বসে চিকিৎসা নেওয়ার সময় অবশ্যই নিয়মিত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হবে। চিকিৎসক আশার বাণী শোনাবেন, অন্তত উপদেশ দেবেন। এই বিপদের সময় এটাও অনেক কিছু।

তবে মৃদু উপসর্গযুক্ত রোগীর হঠাৎ বেশি শ্বাসকষ্ট বা বুকে ব্যথা হলে, জরুরি অক্সিজেনের প্রয়োজন হলে হাসপাতালে যেতে হবে। এমন অবস্থা হলে কোন হাসপাতালে যাবেন, কোথায় অ্যাম্বুলেন্স পাবেন, এসব আগে থেকেই ঠিক করে রাখতে পারলে ভালো। কারণ, রোগীর অবস্থা খারাপ হলে তাড়াহুড়ো হয়, কোথায় যাবে কী করবেন, এসব করতে সময় লেগে যায়।

অন্যদিকে মৃদু উপসর্গ থাকলেও রোগী যদি বয়স্ক হন, আগে থেকে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদ্‌রোগ, কিডনির জটিলতা, ডায়াবেটিস বা ক্রনিক কোনো রোগ থাকে, তবে হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসা নেওয়াই নিরাপদ।

ভয়ে অনেক রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন না, চিকিৎসকেরাও সংক্রমণের ভয়ে থাকেন। কিন্তু চিকিৎসকদের চিকিৎসা দিতেই হবে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা হচ্ছেন এই যুদ্ধের সম্মুখযোদ্ধা। কিন্তু অস্ত্র ছাড়া তাঁরা যুদ্ধ করবেন, তা তো হয় না। তাঁদের অস্ত্র, হচ্ছে সুরক্ষা সরঞ্জাম। সরকার ও বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে এটি নিশ্চিত করতে হবে। রোগীদেরও ভয়ের কোনো কারণ নেই। কয়েক মাস আগেও এ রোগের কোনো ওষুধ ছিল না। এখন কিছু ওষুধ বের হয়েছে। বাংলাদেশেও আসছে। 

অন্যদিকে উপসর্গ নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে মানুষকে পরীক্ষার জন্য নমুনা দিতে হচ্ছে। গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে নমুনা দিতে যাওয়া খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এ জন্য বুথ ও পরীক্ষাগার আরও বাড়াতে হবে। নমুনা দেওয়ার সময় এক রোগী থেকে আরেক রোগীর শারীরিক দূরত্ব অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। মনে রাখতে হবে, শুধু নিজে বাঁচলেই হবে না, অন্যকেও বাঁচাতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম। তাই জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না। এতে নিজেও সুস্থ থাকা যাবে, অন্যকেও সুস্থ রাখা যাবে।

লেখক: ইউজিসি অধ্যাপক ও প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক

সূত্র: প্রথম আলো

21 thoughts on “টেলিমেডিসিনই কিছু করোনা রোগীর জন্য যথেষ্ট

  1. I am only writing to make you understand what a really good experience my wife’s princess obtained viewing your webblog. She noticed some things, which included what it is like to possess an ideal teaching spirit to make others with no trouble learn about specific tortuous things. You undoubtedly surpassed readers’ expected results. Thanks for providing those productive, trusted, informative as well as unique tips on your topic to Mary. https://lexaproescitalopram.com/

  2. I am just writing to make you understand what a outstanding experience my wife’s girl obtained using your webblog. She noticed so many pieces, which included what it is like to possess an excellent helping spirit to let other people with no trouble learn specific specialized things. You truly surpassed readers’ expected results. Thank you for providing these priceless, trusted, informative as well as fun tips about this topic to Lizeth. https://wellbutrinbupropions.com/#

  3. I precisely desired to say thanks again. I’m not certain the things I could possibly have carried out in the absence of the actual creative concepts discussed by you concerning my concern. It absolutely was a depressing concern for me personally, but considering a new professional avenue you handled it forced me to cry for delight. I’m grateful for the assistance and as well , expect you comprehend what a powerful job that you are carrying out educating men and women by way of a web site. I am certain you’ve never come across all of us. https://www.olx.pl/oferta/riser-008c-riser-usb3-0-pci-e-pci-1x-16x-6pin-sata-faktura-23-CID99-IDI5yoN.html

  4. It’s a shame you don’t have a donate button! I’d definitely donate
    to this outstanding blog! I suppose for now i’ll settle for bookmarking
    and adding your RSS feed to my Google account. I look forward to fresh updates and
    will talk about this site with my Facebook group. Talk soon!

    my web blog; ucuz beğeni

  5. I do trust all of the concepts you have presented on your post. They are very convincing and can definitely work. Nonetheless, the posts are too short for novices. May you please extend them a bit from next time? Thank you for the post.| Mikaela Rowen Scrivenor

  6. Do you have a spam problem on this website; I also am a blogger, and I was wondering your situation; we have developed some nice procedures and we are looking to exchange solutions with others, why not shoot me an email if interested. Sharla Gibb Kort

  7. I know this if off topic but I’m looking into starting my
    own weblog and was wondering what all is required to get setup?
    I’m assuming having a blog like yours would cost a pretty penny?
    I’m not very internet savvy so I’m not 100% positive.
    Any recommendations or advice would be greatly appreciated.
    Kudos

    Also visit my blog … rufus download button missing

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

 

ফেইসবুকে আমরা